বরিশাল মেডিকেলের ওষুধ চুরি-স্টোর ইনচার্জ-ফার্মাসিস্টকে আটক করে রিমান্ড আবেদন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বরিশাল শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়(শেবাচিম) হাসপাতালের রোগীদের জন্য বিনামুল্যে দেওয়া ওষুধ পাচাঁর মামলার আসামী স্টোর ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম ও ফার্মাসিস্ট শিশির রঞ্জন হালদারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ আদালতে রিমান্ড আবেদন করেছে। গতকাল মঙ্গলবার বরিশালের অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর আদালতে রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোতয়ালী মডেল থানার এসআই মো. আব্দুল কুদ্দুস। বিচারক অমিত কুমার দে আবেদন শুনানীর জন্য অপেক্ষমান তালিকায় রেখেছেন। রোববার রাতে হাসপাতালের সাব ষ্টোর ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম লিটন ও ফার্মাসিষ্ট শিশির রঞ্জন হালদারকে আটক করা হয়।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই কুদ্দুস জানান, হাসপাতালের রোগীদের জন্য বিনামুল্যে দেয়া ওষুধ চুরি ও কালো বাজারে বিক্রির ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে লিটন ও শিশিরকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হাসপাতালের সাব ষ্টোর থেকে ওষুধ পাচাঁরে কথা তারা দুজনই স্ব^ীকার করেছে। তাই অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতের কাছে আবেদন করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, গতমাসে শেবাচিম হাসপাতালের চতুর্থ শ্রেণি স্টাফ কোয়ার্টারের পুকুরে ভাসমান এবং হাসপাতালের মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ডে পাচারের উদ্দেশ্যে মজুত রাখা বিপুল পরিমান সরকারি ওষুধ উদ্ধার করা হয়। ওই ঘটনায় ওয়ার্ডের ইনচার্জ সিনিয়র স্টাফ নার্স বিলকিছ জাহান, অফিস সহায়ক শেফালী বেগম এবং শেফারীর ছেলে মামুনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ওই ঘটনায় পৃথক দুটি মামলাও হয়েছে।

(Visited 1 times, 1 visits today)





%d bloggers like this: