বাংলাদেশীদের ভাগ্য পরিবর্তনের রুট হল ইরাক।।

বাংলাদেশীদের ভাগ্য পরিবর্তনের রুট হল ইরাক।।

নিজস্ব প্রতিবেদক।। যুদ্ধবিধ্বস্ত ইরাকে পাড়ি জমান রাসেল ।ইরাকে বাজারে শ্রম সংকট দেখা দেয়,রাসেল নিজে তখন ভাবে আমার বাংলাদেশী বেকার যুবক আনা গেলে বাংলাদেশের বেকার সমেস্যা দুর হবে, পাশা পাশি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করা হবে, স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নীত হবে উন্নয়ন দেশে, তারই ধারাবাহিকতায় রাসেল আল-নাহিন ম্যানপাওয়ার সার্ভিসেস লিমিটেড এর মাধ্যমে ইরাক লোক নেয়া শুরু করে,ইরাকে আসা নুর মোহাম্মদ বলেন রাসেল ভাই যদি আমাকে ইরাক না আনত তাহলে আমার ভাগ্য পরিবর্তন হতো না,আর এক ইরাক প্রবাসি মুলাদির খালেক হাওলাদারের পুত্র খোকন হাওলাদার কে রাসেল পুরো টাকা বাকিতে ইরাক আনেন ,খোকন ইরাক কাজ করে রাসেলের টাকা পরিশোধ করেন, বাবা, মা ,ভাই ,বোন ,স্ত্রী,সন্তান নিয়ে খুব ভালো আছেন,বাড়িতে খোকন দুই তালা বিল্ডিং করেছেন।গৌরনদীর নন্দন পট্টি গ্রামের সোবাহান সরদার বলেন, রাসেল ভাইয়ের জন্য আমি ইরাক এসেছি এবং আমার ছেলেকে আনছি,এ ভাবে কয়েক শত বাংলাদেশের শ্রমিক ইরাকের শ্রম বাজারে। বৈদেশিক রেমিটেন্স বাড়াতে বাংলাদেশের শতশত রাসেল দরকার মনে করেন অনেকেই।।

(Visited 1 times, 1 visits today)





%d bloggers like this: