৮ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

বাঁশখালীতে পুলিশ-শ্রমিক সংঘর্ষ: ২ মামলায় সাড়ে ৩ হাজার শ্রমিক আসামি

আপডেট: এপ্রিল ১৮, ২০২১

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক:: বাঁশখালীর গন্ডামারায় গতকাল শনিবার সংঘটিত কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সংঘর্ষের ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের হয়েছে। বাঁশখালী থানার উপপরিদর্শক রাশেদুজ্জামান বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলাটি দায়ের করেছেন। অপর মামলার বাদী হয়েছেন কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান সমন্বয়কারী মো. ফারুক। মামলায় প্রায় সাড়ে তিন হাজার শ্রমিক এবং এলাকাবাসীকে আসামি করা হয়েছে। এছাড়াও কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে বলে মামলায় দেখানো হয়েছে।

থানার পক্ষে দায়ের করা মামলায় আসামি দেখানো হয়েছে দুই থেকে আড়াই হাজার অজ্ঞাত শ্রমিক ও বহিরাগতকে। শ্রমিকদের বিক্ষোভ থামাতে পুলিশের পক্ষে ২৭০ রাউন্ড গুলি ছুঁড়েছে বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

অপর দিকে কয়লা বিদ্যুতের পক্ষে দায়ের করা মামলায় গন্ডামারা ইউনিয়নের পশ্চিম বড়ঘোনা গ্রামের আমান উল্লাহর ছেলে আব্দুর রশিদকে প্রধান আসামি দেখিয়ে ২২ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়াও ওই মামলায় এক হাজারের বেশি অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

এদিকে বিদ্যুৎ কেন্দ্রে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। সেখানকার বিদেশি শ্রমিক ছাড়া দেশের কাজ করা ১০ হাজার শ্রমিক সবাই গ্রেপ্তারের ভয়ে পালিয়ে গেছে। সংঘর্ষের ঘটনা তদন্তে জেলা প্রশাসন ও চট্টগ্রাম রেঞ্জের পুলিশের উদ্যোগে গঠিত দুটি তদন্ত কমিটির সদস্যেরা তদন্ত শুরু করেছে। কমিটি তিন দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সফিউল কবির বলেন, ‘ঘটনার ব্যাপারে পুলিশ ও কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পক্ষে আলাদা দুটি মামলা দায়ের হয়েছে। দোষীদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশ মাঠ পর্যায়ে অভিযানে আছে।’

গত শনিবার সকালে কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিকদের ১১ দফা দাবির বিক্ষোভে পুলিশের গুলিতে পাঁচজন শ্রমিক নিহত এবং ৩২ জন আহত হয়েছে। নিহতরা হলেন- কিশোরগঞ্জের ফারুক আহমদের ছেলে মাহমুদ হাসান রাহাত (২২), চুয়াডাঙ্গার অলি উল্লাহর ছেলে মো. রনি হোসেন (২৩), নোয়াখালীর আব্দুল মতিনের ছেলে মো. রায়হান (১৯), চাঁদপুরের মো. নজরুলের ছেলে মো. শুভ (২২), বাঁশখালীর পূর্ব বড়ঘোনার মওলানা আবু ছিদ্দিকির ছেলে মাহমুদ রেজা (১৯)। আহতদের মধ্যে ১৮ জন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Website Design and Developed By Engineer BD Network