১২ই জুলাই, ২০২০ ইং, রবিবার

মানুষ ট্যাক্স দিয়ে পরিচ্ছন্ন নগরীতে সুস্থ্য থাকতে চায়

আপডেট: মার্চ ১২, ২০২০

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

 

নিজস্ব প্রতিবেদক।।  নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান বলেছেন, আমাদের কাজ আইন তৈরি করে দেওয়া। এগুলো বাস্তবায়নের দায়িত্ব জেলা পরিষদের, ইউনিয়ন পরিষদের, সিটি কর্পোরেশনের। আমরা কখনও সিটি কর্পোরেশন এলাকায় স্কুল মসজিদের কাজ ছাড়া অন্য কাজ করতে গেলে আইনের বিধান রয়েছে। সিটি কর্পোরেশনের অনুমোদনের মাধ্যমে করতে হবে। আজকে যে সকল কথা বলা হয়েছে সেগুলোর উত্তরগুলো সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী কর্মকর্তার দেয়ার কথা। যেহেতু মেয়র এখানে আসেন নাই। আমরা জানি উত্তরগুলো পাবো না। সাধারণ মানুষ ট্যাক্স দিয়ে পরিচ্ছন্ন নগরীতে সুস্থ্য থাকতে চায়।

১২ মার্চ বৃহস্পতিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে একটি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। মুজিব বর্ষ উদযাপন উপলক্ষে ‘পরিচ্ছন্ন গ্রাম-পরিচ্ছন্ন শহর’ কর্মসূচির আওতায় দেশব্যাপী পরিচ্ছন্নতা কার্র্যক্রমের এই শুভ উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এরআগে নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু বক্তব্যে নারায়ণগঞ্জে প্রবেশ মুখে ময়লা আবর্জনা ও র্দুগন্ধের বিষয়টি উল্লেখ্য করে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারের দৃষ্টি আকর্ষন করেন।

সেলিম ওসমান বলেন, আজকের অনুষ্ঠানটা তার। সুন্দর শহর সুন্দর গ্রাম পরিস্কার পরিচ্ছন্ন। আমার মনে হয় আমাদের এখানে দরকার ছিল না। ভদ্র মহিলার দরকার ছিল কিন্তু তিনি নারায়ণগঞ্জের কার্যালয়ে আসেন নাই। আমরা যদি আলোচনা করতে পারতাম তাহলে প্রধানমন্ত্রীর কাছে কিছু সুন্দর পরিকল্পনার কথা বলতে পারতাম। আমাদের কোনো সুযোগ নাই, সিটি কর্পোরেশনের উপর হাত দেয়ার। মেয়রের কাছে অনুরোধ রাখলাম, আলোচনা করে জানান, আমাদেরকে আপনার ভাল না লাগতে পারে কিন্তু জেলা প্রশাসনকে আপনার ভাল লাগতেই হবে। আমরা চাই আলোচনা করে সমাধানে আসার।

তিনি আরও বলেন, আপনি আপনার জন্য কাজ করছেন না এলাকার জনগণের জন্য কাজ করছেন। তাদের ভোটের মাধ্যমেই আপনি নির্বাচিত হয়েছেন। আপনি দোয়া পাইতে পারেন আবার বদদোয়া পাইতে পারেন। প্রধানমন্ত্রী কোন রাজনীতি চান না তিনি পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা চান। আসেন বসেন সমস্যা সামাধান করেন। আমাদের যদি কোন চাহিদা থাকে কোন মামলা থাকে তাহলে বলেন। মন্ত্রণালয়ে দৌড়িয়ে সমস্যা সমধান করে দিবো। আর যদি আপনার যদি কোন চাহিদা থাকে তাহলে বলেন সমস্যার সমাধান করবো। অন্যথায় জনগণের সাথে তাল মিলিয়ে কাজ করতে বাধ্য হবো।

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে সেলিম ওসমান বলেন, ব্যবসা কইরেন না। আমার দাদা পত্রিকা চালিয়েছে, আমার বাবা পত্রিকা চালিয়েছে আমার বড় ভাইও পত্রিকা চালিয়েছে। এটা হবেই। যে কোনো জায়গায় শয়তান থাকেই। ৫০ জনের মধ্যে দুই একজন শয়তান থাকেই। শয়তান হয়েন না।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ জসিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান, নরায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম, জেলা সিভিল সার্জন ডা. ইমতিয়াজ, সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল আমিন, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্টিজের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদা বারিক, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, রূপগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান, আড়াইহাজার উপজেলা চেয়ারম্যান মুজাহিদর রহমান হেলো সরকার ও সোনারগাঁ উপজেলা শাহজালাল সহ জেলা প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিরা।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Website Design and Developed By Engineer BD Network