৪ঠা আগস্ট, ২০২০ ইং, মঙ্গলবার

শিরোনাম
মুলাদীতে পেয়ারা ব্যবসায়ী বজ্রপাতে নিহত রূপসা উন্নয়ন সংস্থার পক্ষ থেকে ফলজ বৃক্ষ রোপন সরকারী মুলাদী কলেজে বৃক্ষরোপন করেন ঢাকাস্থ মুলাদী সমিতি উজিরপুরে ফুটবল খেলায় দন্দের জের ধরে কিশোর গ্যাং এর হামলা, ব্যাবসায়ী আহত মুলাদী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জীবনের ঝুকি নিয়ে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন ডাক্তারগন উজিরপুর বাসীকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছে কবির হোসেন কাজিরচর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে মুলাদী উপজেলা চেয়ারম্যানের মায়ের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মোনাজাত কুড়িগ্রাম জেলা যুবদলের কমটি নিয়ে বাণিজ্যের অভিযোগ ব্যাপক তোলপাড়ের সৃষ্টি মুলাদীতে দুই মাসের মধ্যে বয়াতী বাড়ীর রাস্তার ব্রীজের এপ্রোজ কালর্ভাট বিলিন

ভোলায় ঈদে নতুন জামা না কিনে এক হাজার মাস্ক বিতরণ করল ৫ম শ্রেণির ছাত্র

আপডেট: জুলাই ২৮, ২০২০

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

ভোলা প্রতিনিধি: আবদুর রহিম, পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র। করোনাকালীন মুখে মাস্ক পরে না অনেকে। এমনটা দেখে কষ্ট পায়। ঈদের নতুন জামা লাগবে না। ওই টাকায় মাস্ক কিনে বিতরণ করার বায়না ধরে বাবার কাছে। যারা মাস্ক পড়ে না তাদের সে মাস্ক দিবে। তার মতো বয়সী ছেলেদের সচেতন করবে।বাধ্য হয়ে রাজমিস্ত্রি বাবা মাকসুদুর রহমান এক হাজার মাস্ক কিনে দেন। মঙ্গলবার ওই মাস্ক নিয়ে আবদুর রহিম উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমানের কাছে আসে। একই সঙ্গে তার ইচ্ছের কথা বলে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিক্ষার্থী আবদুর রহিমের কথা শুনে খুশি হয়ে ওকে নিয়ে বেড় হন মাস্ক বিতরণ করতে। শহরের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বিতরণ করা হয় ওই মাস্ক।

কোভিড-১৯ মোকাবিলায় এমন প্রশংসিত উদ্যোগকে স্বাগত জানান, স্থানীয়রা।

আবদুর রহিমের পিতা পেশায় রাজমিস্ত্রি। থাকেন চট্টগ্রামের পতেঙ্গায়। পতেঙ্গা আইডিয়াল স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র আবদুর রহিম। ভোলা জেলার দৌলতখান উপজেলার তালতলী এলাকায় বাড়ি।

ঈদে বাড়ি এসে এলাকায় ছোট-বড় সবাইকে মাস্ক ছাড়া পথেঘাটে চলাচল করতে দেখে কষ্ট পায় আবদুর রহিম। এদের সচেতন করতে তার এই উদ্যোগ। বেশিরভাগ মানুষ স্বাস্থ্য সচেতন নয়। এরা মাস্ক ব্যবহার করে না। করোনা আতংককে অবহেলা করে। এদের সচেতন করতেই মাস্ক বিতরণ করে আবদুর রহিম।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
Website Design and Developed By Engineer BD Network